নিয়মিত বেদানা খাচ্ছেন তো? জেনে নিন বেদানার দারুণ কিছু স্বাস্থ্যগুণ - প্রিয়লেখা

নিয়মিত বেদানা খাচ্ছেন তো? জেনে নিন বেদানার দারুণ কিছু স্বাস্থ্যগুণ

Sanjoy Basak Partha
Published: December 27, 2017

রোগ সারানোর জন্য আমরা কত ধরণের ওষুধ খেয়ে থাকি। অথচ বিভিন্ন ধরণের ফলেই আছে রোগ প্রতিরোধকারী নানা উপাদান, রোগ সারানোর নানা গুণাগুণ। তেমনি এক ফল হল বেদানা। রোগ প্রতিরোধকারী বিভিন্ন উপাদানের উপস্থিতির কারণে বেদানাকে ‘স্বর্গীয় ফল’ ও বলা হয়ে থাকে। বাংলায় বেদানা বললেও হিন্দি, উর্দু কিংবা পশতুতে এই ফলকে বলা হয় ‘আনার’। বেদানায় প্রচুর পরিমাণ আঁশ, ভিটামিন সি, ভিটামিন কে, পটাশিয়াম, পলিফেলন ও পুনিসিস থাকে। এছাড়াও রয়েছে অনেক ধরণের স্বাস্থ্যগুণ। নিচে দেখে নিন বেদানার দারুণ সেই স্বাস্থ্যগুণগুলোর কথা।

হৃদপিণ্ডের সুস্থতা প্রদান করে:

বেদানার সবচেয়ে বড় উপকারিতা, এটি মানুষের হৃদপিণ্ডকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। আমরা প্রতিদিন যেভাবে চর্বি জাতীয় খাবার খেয়ে থাকি, এতে করে আমাদের ধমনীর আবরণে অনেক চর্বি জাতীয় পদার্থ জমা হতে থাকে। এই চর্বি জমে জমে ধমনীতে রক্ত প্রবাহের পথ ক্রমে সংকুচিত হতে থাকে। ফলে দেখা যায় হৃদরোগের ঝুঁকি।

অথচ বেদানা খেলে এই ঝুঁকি কিছুটা হলেও কমাতে পারেন আপনি। বেদানার রস দ্রুত মাংসপেশিতে অক্সিজেন পৌঁছে দেয়। নিয়মিত বেদানা খেলে এই বেদানার রস চর্বির স্তরকে গলিয়ে ফেলে।

প্রস্টেট ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে:

বয়স বাড়ার সাথে সাথে পুরুষদের প্রস্টেট ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কাও বাড়তে থাকে। পুরুষদের ক্ষেত্রে প্রস্টেট স্পেসিফিক এন্টিজেন মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে গেলে প্রস্টেট ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে। নিয়মিত বেদানা খেলে এই প্রস্টেট স্পেসিফিক এন্টিজেন মাত্রাতিরিক্ত বাড়তে পারে না। ফলে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও কমে যায়।

ত্বক উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে:

বেদানা অয়েল ময়েশ্চারাইজার হিসেবে ভালো কাজ করে। ত্বকের ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণকে প্রতিরোধ করে থাকে। ভিটামিন সি, ফলিক এসিড, সাইট্রিক অ্যাসিড, ট্যানিন সমৃদ্ধ বেদানা ত্বকের উজ্জ্বলতা ধরে রাখতে ও ত্বককে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে উপকারী:

বেদানার রসে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপস্থিত থাকে যা টক্সিন হটিয়ে ডিটক্সিফিকেশনে সাহায্য করে। এই অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হৃদপেশিতে অক্সিজেন সরবরাহ ভালো রাখে, ফ্রি রেডিকেলস প্রতিরোধ করে কোলেস্টেরল বৃদ্ধিতে বাধা দেয়।

হাড়ের সুস্থতা প্রদান করে:

হাড়ের সংযোগস্থলে কার্টিলেজ নামে অস্থিরস থাকে, যা হাড়ের ক্ষতি করে। বেদানার রসে পটাশিয়াম ও পলিফেনল থাকে যা এই কার্টিলেজ প্রতিরোধে অনেক উপকারী। এছাড়া বেদানা খেলে হাড়ের রোগ অস্টিওপোরেসিস থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়।

রক্তস্বল্পতা দূর করে:

বেদানাতে প্রচুর আয়রন রয়েছে যা রক্তস্বল্পতা দূর করতে সাহায্য করে। বেদানা মুখের রুচি বর্ধন করে, কোষ্ঠকাঠিন্যও উপশম করে। পেটের অসুখ দূর করে, কাশি ও কণ্ঠস্বর পরিষ্কার করে।

দাঁতের যত্নে বেদানা:

বেদানাতে যেই অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে তা দাঁতে প্লাক জমতে বাধা দেয়। জিন জিভাটাইটিস নামক মাড়ির রোগ থেকেও মুক্তি মিলে বেদানা খেলে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়:

বেদানা মানুষের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। বেদানাতে প্রচুর পটাশিয়াম ও ভিটামিন সি রয়েছে যা মানুষের ইমিউন সিস্টেমকে শক্তিশালী করে। বেদানার মধ্যে ৩ ধরণের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে- ট্যানিন, অ্যান্থোসিয়ানিন ও এলাজিক এসিড।

রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে:

অনেক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকার কারণে বেদানা সিস্টোলিক ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। ফলে উচ্চ রক্তচাপের শঙ্কা কমে যায়। এছাড়া তরুণাস্থির ক্ষয় রোধ করতেও বেদানা ভালো উপকারী।