আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শচীন টেন্ডুলকারের যত দুর্দান্ত রেকর্ড - প্রিয়লেখা

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শচীন টেন্ডুলকারের যত দুর্দান্ত রেকর্ড

Sanjoy Basak Partha
Published: April 16, 2018

ক্রিকেট ও শচীন টেন্ডুলকার, শব্দ দুটি যেন একে অপরের সমার্থক। আধুনিক ক্রিকেটে ব্যাটিংয়ের শেষ কথা ধরা হয় যাকে, সেই শচীন টেন্ডুলকারের একগাদা রেকর্ড নিয়েই আজকের আয়োজন।

ওয়ানডেতে শচীনের রেকর্ড:

  • ওয়ানডে ক্রিকেটে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির মালিক।
  • ওয়ানডে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরি; ৪৯ টি।
  • ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ হাফ সেঞ্চুরি; ৯৬ টি।
  • ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ ১৮ হাজার ৪২৬ রান।
  • সর্বোচ্চ ৫ বার দেড় শতাধিক রানের ইনিংস, রোহিত শর্মা ও ডেভিড ওয়ার্নারেরও আছে সমান ৫ টি করে ইনিংস।
  • এক পঞ্জিকাবর্ষে সবচেয়ে বেশি রান, ১৯৯৮ সালে ৩৪ ম্যাচে ৬৫.৩১ গড়ে ১৮৯৪ রান।
  • এক পঞ্জিকাবর্ষে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি, ১৯৯৮ সালে ৩৪ ম্যাচে ৯ টি।
  • কোন নির্দিষ্ট প্রতিপক্ষের বিপক্ষে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৯ টি।
  • সবচেয়ে বেশি ওয়ানডে খেলার রেকর্ড, ৪৬৩ টি।
  • সবচেয়ে বেশি ম্যান অফ দ্যা ম্যাচের রেকর্ড, ৬২ বার।

  • সবচেয়ে বেশি ম্যান অফ দ্য সিরিজের রেকর্ড, ১৫ বার।
  • দীর্ঘতম ওয়ানডে ক্যারিয়ার, ২৩ বছর ০৫ দিন।
  • ১৫ হাজার রান, ১০০ উইকেট ও ১০০ ক্যাচের ট্রিপলের মালিক একমাত্র ক্রিকেটার।
  • দুইটি দেশের বিপক্ষে কমপক্ষে ৮ টি করে সেঞ্চুরি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৯ টি, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৮ টি।
  • ৫০ পেরোনো সর্বাধিক ইনিংস, ১৯৫ টি (ফিফটি ৯৬ টি, সেঞ্চুরি ৪৯ টি)।
  • সর্বোচ্চ ৭ বার এক পঞ্জিকাবর্ষে হাজারের বেশি রান করার রেকর্ড (১৯৯৪, ১৯৯৬, ১৯৯৭, ১৯৯৮, ২০০০, ২০০৩ ও ২০০৭)।
  • বিশ্বকাপে সর্বাধিক রান। ৪৫ ম্যাচে ৫৬.৯৫ গড়ে ২২৭৮ রান।
  • বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরি, ৪৪ ম্যাচে ৬ সেঞ্চুরি।
  • এক বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি রান। ২০০২ বিশ্বকাপে ৬১.১৮ গড়ে ১১ ম্যাচে ৬৭৩ রান।
  • বিশ্বকাপে সর্বাধিক বার ম্যান অফ দ্য ম্যাচ, ৯ বার।

  • একটানা সবচেয়ে বেশি ওয়ানডে খেলার রেকর্ড। ১৯৯০ সালের ২৫ এপ্রিল থেকে ১৯৯৮ সালের ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত একটানা ১৮৫ টি ওয়ানডে খেলেছেন তিনি।
  • ওয়ানডেতে সবচেয়ে বড় পার্টনারশিপের অংশীদার। ১৯৯৯ সালের ০৮ নভেম্বর হায়দ্রাবাদে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে রাহুল দ্রাবিড়ের সাথে মিলে ২য় উইকেটে ৩৩১ রানের জুটি করেছিলেন শচীন।
  • সৌরভ গাঙ্গুলীর সাথে মিলে ২৬ টি সেঞ্চুরি জুটি করেছেন শচীন, তার মধ্যে ২১ টিই ওপেনিংয়ে। দুটিই বিশ্বরেকর্ড।
  • অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলঙ্কা দুই দলের বিপক্ষেই আড়াই হাজারের উপরে রান করেছেন। অন্য কোন ব্যাটসম্যানই নির্দিষ্ট কোন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে আড়াই হাজারের উপরে রান করতে পারেননি। সেখানে শচীন করেছেন দুইটি প্রতিপক্ষের বিপক্ষে।

টেস্টে শচীনের রেকর্ড:

  • টেস্ট ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ৫১ টি সেঞ্চুরি।
  • টেস্ট ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি রান, ১৫৯২১।
  • ব্রায়ান লারার সাথে যৌথভাবে দ্রুততম ১০ হাজার রানের রেকর্ড। দুজনেই ১০ হাজারি ক্লাবে প্রবেশ করেছিলেন ১৯৫ তম ইনিংসে।
  • ১২ হাজার থেকে শুরু করে ১৫ হাজার- প্রতিটি মাইলফলক স্পর্শ করা প্রথম ব্যাটসম্যান।
  • সবচেয়ে বেশি ২০০ টি টেস্ট খেলা ব্যাটসম্যান। ২০০ টেস্ট খেলা একমাত্র ব্যাটসম্যানও।
  • সবচেয়ে বেশি ২০ বার দেড় শতাধিক রানের ইনিংস।
  • অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১১ টি টেস্ট সেঞ্চুরি। অজিদের বিপক্ষে তাঁর চেয়ে বেশি টেস্ট সেঞ্চুরি আর আছে কেবল স্যার জ্যাক হবসের। নিজের ১২ সেঞ্চুরির সবকয়টিই তিনি করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

  • জ্যাক হবস ও ডেভিড গাওয়ারের পর ৩য় ব্যাটসম্যান হিসেবে অজিদের বিপক্ষে ৩০০০ রানের মালিক তিনি।
  • ভারতীয়দের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৪ বার ম্যান অফ দ্য ম্যাচ।
  • ৬ পঞ্জিকাবর্ষে ১০০০+ রান করেছেন, যা বিশ্বরেকর্ড। ১৯৯৭, ১৯৯৯, ২০০১, ২০০২, ২০০৮ ও ২০১০ সালে হাজারের উপর রান করেছেন তিনি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫ বার করে করেছেন রিকি পন্টিং, ব্রায়ান লারা ও ম্যাথিউ হেইডেন।
  • টেস্ট ইতিহাসের তৃতীয় কনিষ্ঠতম সেঞ্চুরিয়ান তিনি।
  • টেস্টে রাহুল দ্রাবিড়ের সাথে মিলে ১৯ টি সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ আছে তাঁর, যা একটি বিশ্ব রেকর্ড।
  • প্রথম বিদেশী ব্যাটসম্যান হিসেবে সাউথ আফ্রিকার মাটিতে ৫ টি টেস্ট সেঞ্চুরির কৃতিত্ব তাঁর।
  • তাঁর ৫১ টেস্ট সেঞ্চুরির মধ্যে ২২ টি দেশের মাটিতে, আর ২৯ টি বিদেশে। বিদেশে এর চেয়ে বেশি টেস্ট সেঞ্চুরি করেননি আর কেউই।
  • ৩৫ বছরের পরে ১২ টি টেস্ট সেঞ্চুরি করেছেন তিনি! তিনি ছাড়া আর কেবল ইংল্যান্ডের গ্রাহাম গুচেরই আছে এই রেকর্ড।

অন্যান্য রেকর্ড:

  • ২০ বছরের আগে ৫ টি টেস্ট সেঞ্চুরি করা একমাত্র ব্যাটসম্যান।
  • আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩০ হাজার রান করা একমাত্র ব্যাটসম্যান।
  • আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি ২৭ বার নার্ভাস নাইন্টিজের শিকার।
  • একমাত্র ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে রঞ্জি ট্রফি, দুলীপ ট্রফি ও ইরানি ট্রফি তিনটিরই অভিষেক ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছেন।
  • বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ২১ বার ৫০ পেরিয়েছেন, যার ৬ টিকে রূপ দিয়েছেন সেঞ্চুরিতে।
  • আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি ২০১৬ টি চারের মালিক তিনি।
  • আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশিবার ম্যান অফ দ্য ম্যাচের মালিক তিনি।
Loading...