বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক দশ খেলার গল্প - প্রিয়লেখা

বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক দশ খেলার গল্প

farzana tasnim
Published: August 26, 2017

খেলাধুলার শুরুটা হয়েছিল মানুষকে নিছক বিনোদন দেয়ার উদ্দেশ্য থেকে। সেই বিনোদন থেকে বেশি খানিকটা দূরে সরে এসে এখনকার পৃথিবীতে এমন কিছু খেলা আছে, যাতে প্রতিমুহূর্তে রয়েছে মৃত্যুর হাতছানি। সামান্য একটু ভুলেই প্রাণ দিতে হয় এসব খেলায়। সম্প্রতি মার্কিন ম্যাগাজিন ফোর্বস তৈরি করেছে বিশ্বের বিপজ্জনক দশটি খেলার তালিকা।  বিপজ্জনক সেই দশটি খেলা নিয়ে সাজানো হয়েছে আমাদের আয়োজন।

হোয়াইট ওয়াটার রাফটিং: বিপজ্জনক খেলাগুলোর মধ্যে অন্যতম হল হোয়াইট ওয়াটার রাফটিং। এটি পানির উপরের খেলা। খরস্রোতা নদীতে একটি বোর্ডে দুঃসাহসিক অভিযান পরিচালনা করতে হয় এ খেলায়। ওয়াটার রাফটিংয়ে আহত হওয়াটা এই খেলার স্বাভাবিক ব্যাপার। আর খেলোয়াড়দের মৃত্যুর আশঙ্কা যেন তাড়া করে বেড়ায় প্রতিমুহূর্তে।

বিএমএক্স: সাইকেল বা মোটর চক্রযান স্টান্ট সাধারণভাবে বিএমএক্স হিসেবে পরিচিত। অত্যন্ত রোমাঞ্চকর খেলা এটি। তবে এ খেলায় প্রতিমুহূর্তে থাকে বিপদের সম্ভাবনা। এটি শুধু এক ধরনের স্পোর্টসই নয় বরং বাইসাইকেল স্টান্ট এক ধরনের শিল্প। সাধারণত কিশোর ও তরুণদের মাঝে এটি ব্যাপক জনপ্রিয়। পৃথিবীর অনেক দেশের মত বাংলাদেশেও বাইসাইকেল স্টান্ট দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

ক্লাইম্বিং: ক্লাইম্বিং বা পর্বতারোহণ বেশ বিপজ্জনক একটি খেলা। পুরো অভিযানেই  প্রতিমুহূর্তে থাকে মৃত্যুর হাতছানি। জার্মানির দক্ষিণে ‘ফ্র্যাংকোনিয়ান সুইজারল্যান্ড’ বলে পরিচিত এলাকায় এক টিলা আছে। আলেক্সান্ডার মেগোস ও তাঁর বন্ধুরা এখানে নিয়মিত অনুশীলন করেন৷ সেই ৫ বছর বয়স থেকেই পাহাড় বেয়ে উঠছেন আলেক্সান্ডার৷ এখন তাঁর বয়স ২১৷ তরুণ ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়ন হিসেবে তাঁকে বিশ্বের সেরাদের একজন বলে গণ্য করা হয়৷ নতুন রুটের খোঁজে তিনি সারা পৃথিবী চষে বেড়ান৷ তাঁর মতে, রক ক্লাইম্বিং মোটেই ঝুঁকিপূর্ণ নয়৷ বহুকাল ধরেই ক্লাইম্বিং বেশ জনপ্রিয়৷ তবে গত ১০ বছরে রক ক্লাইম্বারদের সংখ্যা প্রায় ১০ গুণ বেড়ে গেছে৷

স্ট্রিট লিউজ: রাস্তার উপর শুয়ে নির্দিষ্ট গতিতে চলতে হয় এই খেলায়। গতি ও ভারসাম্যের অভাবে যেকোনো মুহূর্তে এই খেলায় আছে বিপদের সম্ভাবনা।

বিগ ওয়েভ সার্ফিং: পানির টেউয়ের সঙ্গে খেলতে হয় এই খেলা। ২০ ফুট উচ্চতার ঢেউয়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দুঃসাহসিক ওয়েভ সার্ফিং করে থাকেন অভিজ্ঞ সার্ফারা। এই মুহূর্তে এক নম্বর বিগ ওয়েভ রাইডার হলেন মকোয়া রথম্যান।

স্কুবা ডাইভিং: স্কুবা কথার পুরো অর্থ হল সেল্ফ-কনটেইন্ড আন্ডারওয়াটার ব্রেথিং অ্যাপারাটাস। স্কুবা ডাইভিংয়ে হাঙর বা ভয়ঙ্কর প্রাণীর আক্রমণের আশঙ্কা থাকে।এ ছাড়াও গভীর পানির ভিতরে থাকার কারণে স্পাইনাল কর্ড, ব্রেনের সমস্যা দেখা দেয়। এমনকী, অনেকে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারাও যায়।

বুল ফাইট: বিপজ্জনক স্পোর্টসের মধ্যে আরও একটি অন্যতম খেলা হল বুল ফাইট। স্পেন, পর্তুগালের ঐতিহ্যবাহী একটি খেলা এটি। ফ্রান্সের বেশ কিছু জায়গায় বুল ফাইটের প্রচলন রয়েছে। এমনকী, লাতিন আমেরিকার মেক্সিকো, কলোম্বিয়া, ইকুয়েডরেও বুল ফাইট হয়ে থাকে। উন্মত্ত ষাঁড়ের সামনে দাঁড়িয়ে ম্যাটাডোরকে তার পারদর্শিতা দেখিয়ে বদলে দিতে হয় খেলার গতি।

কেভ ডাইভিং: অতল সাগরে গুহার ভিতরে দুঃসাহসিক অভিযান, এরই নাম কেভ ডাইভিং। অনেক সময় আলোর অভাবে পার্টনারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। কেভ ডাইভাররা কখনও দিকভ্রান্ত হয়ে যায়। অনেকে আবার অক্সিজেনের অভাবে প্রাণ হারান।

বেস জাম্পিং: বিপজ্জনক স্পোর্টসের মধ্যে অন্যতম হল বেস জাম্পিং। উঁচু পাহাড়, বিল্ডিং, অ্যান্টেনা, স্প্যান থেকে প্যারাস্যুটের সাহায্যে ঝাঁপ দেওয়া।  আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশ এই স্পোর্টসকে নিষিদ্ধ করে দেয়া হয়েছে। কোন সংগঠনের উদ্যোগ ছাড়া সাধারণত বেস জাম্পিং করতে অনুমতি দেওয়া হয় না।

হেলি-স্কিং: খেলাটি খেলতে হয় বরফের সঙ্গে যুদ্ধ করে। এটি অফ ট্রায়াল স্নো-বোর্ডিং। খেলাটি প্রথমে হেলিকপ্টার দ্বারা পরিচালিত হয়। বরফের মধ্যে প্রচণ্ড বেগে ছুটতে হয় এই খেলায়। ফলে যেকোনো মুহূর্তে বরফ ধ্বসে মৃত্যুর আশঙ্কা রয়েছে।