পোগোজ স্কুল : বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি স্কুল - প্রিয়লেখা
পোগোজ স্কুল

পোগোজ স্কুল : বাংলাদেশের প্রথম বেসরকারি স্কুল

ahnafratul
Published: October 19, 2017

আচ্ছা, যদি আপনাকে জিজ্ঞাসা করা হয়, ঢাকা শহরের প্রথম বেসরকারী স্কুল কোনটি? জবাব দিতে পারবেন? কেউ কেউ হয়ত ঝট করে উত্তরটা করে ফেলবে। আবার কেউ কেউ মাথা চুলকোতে থাকবে। আসলেই তো! ঢাকার প্রথম বেসরকারী স্কুলের নাম তো জানা নেই! আসুন, প্রিয়লেখার পাতায় আজ জেনে নিই ঢাকা শহরের প্রথম বেসরকারী স্কুল কোনটি ছিলঃ

পোগোজ স্কুল

পোগোজ স্কুল বাংলাদেশের প্রাচীনতম বিদ্যালয়গুলোর মাঝে অন্যতম। প্রতিষ্ঠাতার নাম নিকোলাস পোগোজ বা নিকি পোগোজ। তিনি ছিলেন একজন আর্মেনীয় ব্যবসায়ী, জমিদার ও তৎকালীন ঢাকার একজন প্রভাবশালী নাগরিক। এ অঞ্চলে তখন আর্মেনীয় বণিকদের খুব প্রভাব ও প্রতিপত্তি ছিল। আর্মেনীয়দের নিয়ে বিস্তারিত আরো কিছু জানতে চাইলে এই লেখায় একটু ঢুঁ মেরে আসতে পারেন।

পোগোজ স্কুল
১৮৪৮ সালে নিকোলাস পোগোজ স্কুলের প্রতিষ্ঠা করেন। শুরুর দিকে এটি স্থাপিত হয়েছিল নিকোলাসের বাসার নিচতলায়। তখন নাম ছিল পোগোজ অ্যাংলো-ভারনাকুলার স্কুল। পরবর্তীতে ১৮৫৫ সালে জেসি পেনিওটির বাসায় স্কুলটি স্থানান্তরিত করা হয়। এরপর ১৮৬০ সালে ঢাকার সদরঘাট এলাকার একটি দোতলা ভবনে স্কুলটি স্থানান্তরিত করা হয়। বর্তমানে স্কুলটির ঠিকানা হচ্ছে চিত্তরঞ্জন এভিনিউ। নিকোলাস পোগোজ স্কুলের সমস্ত খরচের সিংহভাগ নিজের পকেটের থেকে খরচ করতেন। কথিত আছে, স্কুলের আয় যেখানে হত ৪০-৫০ রুপি, সেখানে ব্যয়ের জন্য খরচ হত ৯০ রুপি। এই পুরো হিসেবটাই নিকোলাস মেলাতেন নিজের পকেট থেকে। এছাড়াও নানা ফান্ড থেকে টাকা সংগ্রহ করে শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষার ব্যবস্থা করতেন তিনি।
পোগোজ স্কুলের শিক্ষার্থী কারা কারা ছিলেন, তা জানতে পারলে আপনার চোখ চড়কে উঠবে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্লচন্দ্র ঘোষ, চিত্র পরিচালক আতাউর রহমান খান, ডক্টরেট ডিগ্রী নেয়া প্রথম বাঙ্গালি নিশিকান্ত চ্যাটার্জী, বাংলায় প্রথম কুরআন শরীফের অনুবাদ স্যার গিরিশ চন্দ্র সেন, প্রথম ভারতীয় মন্ত্রিসভার সদস্য স্যার কে জি গুপ্ত প্রমুখ খ্যাতনামা সব মানুষের চিহ্ন রয়েছে এই স্কুলের প্রতিটি বাঁকে বাঁকে। আরো ছিলেন কবি শামসুর রহমান, সম্পাদক কালীপ্রসন্ন ঘোষ, প্রখ্যাত কৌতুকাভিনেতা ভানু বন্দোপাধ্যায়, আয়ুর্বেদ ঔষধের প্রতিষ্ঠাতা বাবু মাথুরামোহন চক্রবর্তী।

পশ্চিমবঙ্গের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্লচন্দ্র ঘোষ

ইতিহাসবিদ মুনতাসীর মামুনের মতে ১৮৪৮ সালে সর্বপ্রথম পোগোজ স্কুলের যাত্রা শুরু হয়েছিল। এটাও ধারণা করা হয় যে, এর কিছু বছর আগে ৯৯জন ছাত্রকে ফি পরিশোধ করতে না পারার কারণে বহিষ্কার কর হয়েছিল। ডক্টর এ টি ওয়াইজ “ইউনিয়ন স্কুল” নামক একটি স্কুল খোলেন যেটির মূল উদ্দেশ্য ছিল গরীব ও অসহায় ছাত্রদের জন্য যাতে এটি শিক্ষা সরবরাহের প্রধান কারখানা হিসেবে গড়ে উঠতে পারে। দুই বছর পরই স্কুলের কার্যক্রম থেমে যায় এবং এরপর আবির্ভূত হন পোগোজ। তিনি সম্পূর্ণ নিজের খরচে স্কুলের কার্যক্রম পরিচালনা করেন এবং নিজের নামে স্কুলের নামকরণ করেন। তার বন্ধু পেনিওটির বাড়িতে যখন স্কুলটি স্থানান্তর করা হয়, তখন ভাড়া হিসেবে প্রতি মাসে পেনিওটি পেতেন দশ টাকা। পেনিওটির বাড়ি থেকে স্কুলটি সরিয়ে নেন মৈনিন্দ্রচন্দ্র ভট্টাচার্য। তিনি এটিকে “সুধাময় হাউজ”এর অভ্যন্তরীণে আরমেনিসা চার্চের ভেতরে অথবা শাবিস্তান সিনেমা হলের পাশে সরিয়ে নেন।

পোগোজ স্কুল
নিকোলাস পোগোজ লন্ডনে চলে যাবার পর ১৮৭৮ সালে স্কুলের দায়িত্ব নিয়েছিলেন মোহিনীমোহন দাস। তিনি ছিলেন একজন বিখ্যাত জমিদার ও ব্যাংকার। তার মৃত্যুর পর ১৯০৭ সালে স্কুলের দায়িত্ব নেন হরিহর ধর।

চাইলেই টুক করে ঘুরে আসতে পারেন শত বছরের এই পুরনো ঐতিহ্যবাহী স্কুল থেকে। গেলে দেখবেন এখনো সেখানে দুপুরের রোদে কিংবা বিকেলের ছায়ায় খেলা করে ছোট ছোট ভবিষ্যতেরা। নিজের অজান্তেই হয়ত আপনার মুখ থেকে উচ্চারিত হবে ‘বাহ!’
আজ এ পর্যন্তই। প্রিয়লেখার সাথেই থাকুন।