জেনে রাখুন গুরুত্বপূর্ণ কিছু টেবিল এটিকেট - প্রিয়লেখা

জেনে রাখুন গুরুত্বপূর্ণ কিছু টেবিল এটিকেট

Sanjoy Basak Partha
Published: November 11, 2017

পেশাগত এবং সামাজিক জীবনে টেবিল এটিকেট জেনে রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। প্রয়োজনীয় টেবিল এটিকেট না জানার কারণে সবার সামনে আপনি অস্বস্তিকর ও বিব্রতকর অবস্থার মুখোমুখি হতে পারেন। আমাদের প্রত্যেককেই কখনো না কখনো এরকম সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে হয়। গুরুত্বপূর্ণ টেবিল এটিকেটগুলো তাই এখনি জেনে রাখা দরকারি।

আগে হোস্টকে বসতে দিন, তারপর আপনি বসুন: 

অনেক অনুষ্ঠানে টেবিলের উপর কার্ড রেখে অনুষ্ঠানের হোস্ট আপনাকে বুঝিয়ে দেন, এই চেয়ারটা আপনার জন্য। যদি এরকম কিছু না থাকে, তাহলে আপনার হোস্টের বসার জন্য অপেক্ষা করুন, তারপর আপনার আসন গ্রহণ করুন। অনেক অনুষ্ঠানেই খাওয়া দাওয়ার পর্ব শুরুর আগে কিছু ধর্মীয় আচার পালন করা হয়। আপনি যদি সেই আচারে বিশ্বাসী না ও হন, তবুও নীরব থেকে বাকিদের অনুভূতির প্রতি সম্মান প্রদর্শন করুন।

ন্যাপকিন: 

বসার পর হোস্টের দিক থেকে কোন প্রকার ইঙ্গিত না আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। যেই মুহূর্তে হোস্ট তার ন্যাপকিন খুলবেন, আপনিও টেবিল কিংবা প্লেট থেকে আপনার নিজের ন্যাপকিন খুলে কোলের উপর বিছিয়ে রাখুন। খাওয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত ন্যাপকিন কোলের উপর থেকে সরাবেন না। খাওয়ার মাঝখানে কোন কারণে চেয়ার ছেড়ে উঠতে হলে ন্যাপকিনটা আপনার প্লেটের যেকোনো একপাশে রেখে তারপর উঠুন। খাওয়া শেষ হয়ে গেলে ন্যাপকিন আপনার প্লেটের বাম পাশে রেখে উঠে পড়ুন।

মনে রাখবেন, ন্যাপকিনকে আপনার টিস্যু বা রুমাল হিসেবে ব্যবহার করার জন্য দেয়া হয়নি। তাই এটি দিয়ে কখনও ছুরি, চামচ কিংবা মুখ মুছবেন না। ন্যাপকিনকে কখনও কুঁচকে বা কোন কিছুর তলায় গুঁজে রাখবেন না।

কখন খাওয়া শুরু করবেন: 

আপনার টেবিলের সকল অতিথির প্লেটে খাবার সার্ভ না করা পর্যন্ত আপনার চামচ তুলবেন না। যদি কোন প্রাইভেট ডিনার পার্টি হয়, তাহলে আপনার হোস্টের খাওয়া শুরু পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। আর যদি কোন বড় বুফে পার্টি হয়, তাহলে টেবিলের সকলের প্লেটে খাবার সার্ভ করা হয়ে গেলে তারপর খাওয়া শুরু করুন।

চামচ-ছুরির ব্যবহার: 

  • ছুরি আর চামচ সবসময় ধরবেন ডান হাতে, আর কাঁটা চামচ ধরবেন বাঁ হাতে।
  • চিকেন ফ্রাই জাতীয় খাবার খাওয়ার সময় টিস্যু দিয়ে পেঁচিয়ে নিন।
  • হাড়বিহীন মাংস খাওয়ার সময় কাঁটা চামচ ও ছুরির ব্যবহার করুন।
  • আস্ত মাছ হলে ছুরি দিয়ে আগে টুকরো টুকরো করে কেটে নিয়ে তারপর খাওয়া শুরু করুন।
  • বার্গার কিংবা স্যান্ডউইচ জাতীয় খাবারের জন্য ছুরি বা চামচ ব্যবহারের দরকার নেই, হাত দিয়েই খেতে পারেন।

খাবার পরিবেশন: 

টেবিলের যেখানে খাবারের ডিশ রাখা হবে, সেখান থেকে ‘অ্যান্টি ক্লক’ পদ্ধতিতে ডিশ পুরো টেবিল ঘুরে আসবে। কখনো উঠে গিয়ে খাবার আনবেন না, ডিশের নিকটতম ব্যক্তিকে বিনীতভাবে ডিশটি এগিয়ে দিতে বলুন। লবণ, সস এগুলো একে অপরকে এগিয়ে দিয়ে সাহায্য করুন। ডিশে রাখা তৈজসপত্র দিয়ে খাবার প্লেটে তুলুন, আপনার নিজের চামচ দিয়ে তুলতে যাবেন না।

জেনে রাখা ভালো কিছু চামচীয় সংকেত: 

বড় বড় রেস্টুরেন্টে ওয়েটারকে ডেকে কিছু বলাটাও অনেক সময় অশোভন আচরণ হিসেবে গণ্য হতে পারে। সেজন্য ওয়েটারদের কিছু চামচীয় সংকেত শেখানো হয়, যা দেখে তারা অতিথিদের সাথে যোগাযোগ করেন। আপনারও জেনে রাখা উচিত সেই সংকেতগুলো।

  • ছুরি ও চামচ কোণাকুণি ভাবে রাখার মানে হচ্ছে আপনি খাওয়ার ফাঁকে বিশ্রাম নিচ্ছেন, কিছুক্ষণ পর আবার খাওয়া শুরু করবেন।
  • ছুরি ও চামচ যোগ চিহ্নের মত করে রাখার মানে হচ্ছে আপনি দ্বিতীয় প্লেট খাবারের জন্য প্রস্তুত এবং আপনি ওয়েটারকে সংকেত দিচ্ছেন আপনাকে দ্বিতীয় প্লেট খাবার সার্ভ করার জন্য।
  • ছুরি ও চামচ পাশাপাশি লম্বা করে রাখার অর্থ হচ্ছে আপনার খাওয়া হয়ে গেছে, এবং ওয়েটার পরিষ্কার করে নিতে পারে।
  • ছুরি ও চামচ পাশাপাশি আড়াআড়ি ভাবে রাখার অর্থ হচ্ছে আপনার খাওয়া শেষ এবং খাবার খুবই সুস্বাদু ছিল এবং আপনার তা পছন্দ হয়েছে।
  • ছুরি ও চামচ একটি আরেকটির ভেতর ঢুকিয়ে কোণাকুণি ভাবে রাখার অর্থ হচ্ছে আপনার খাওয়া শেষ, কিন্তু খাবার আপনার পছন্দ হয়নি।

আরও কিছু টুকিটাকি আদব-কায়দা: 

  • টেবিলে বসার আগে আপনার মোবাইল ফোন বন্ধ করে নিন। সকলের সামনে বসে মোবাইল ব্যবহার করা খুবই অশোভন আচরণের মধ্যে পরে।
  • খাবার মুখে নিয়ে কখনো কথা বলবেন না। এমনকি কেউ যদি আপনাকে কিছু জিজ্ঞেসও করে, আগে মুখের খাবার শেষ করুন, তারপর জবাব দিন।
  • খাওয়া শুরুর আগেই সব খাবার চামচ দিয়ে কেটে নিবেন না। একটু একটু করে কাটুন, তারপর খান।
  • স্যুপ খাওয়ার সময় পুরো চামচটাই মুখে ঢুকিয়ে দেবেন না। মুখের সামনে চামচ এনে চামচের পাশ থেকে স্যুপ খান।
  • প্লেটে পরিবেশনকৃত সকল খাবারই অন্তত দুই-একবার করে মুখে দিন, যদি না নির্দিষ্ট কোন খাবারে আপনার অ্যালার্জিজনিত সমস্যা থাকে।
  • খাবার টেবিলে কনুই রাখবেন না।
  • বেশি দ্রুত কিংবা বেশি আস্তে খাবেন না। বাকিদের সাথে সামঞ্জস্য রেখে খাওয়া শেষ করুন।
  • টেবিলে বসে কখনো টুথপিক ব্যবহার করবেন না।