ওয়ার্ডপ্রেস settings menu সম্পর্কে বিস্তারিত পরিচিতি ! - প্রিয়লেখা

ওয়ার্ডপ্রেস settings menu সম্পর্কে বিস্তারিত পরিচিতি !

sakeba
Published: September 8, 2016

ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে ধারাবাহিক টিউটরিয়ালে আপনাদের স্বাগতম। গত পর্বে আলোচনা করেছিলাম ওয়ার্ডপ্রেসের এডমিন প্যানেলের এর পরিচিতি নিয়ে। আজকের আলোচনার বিষয় ওয়ার্ডপ্রেস এডমিন প্যানেলের সেটিংসমূহ নিয়ে।  নিচের ওয়ার্ডপ্রেসের সেটিংস সেকশনের ছবিটি দেখুন…

 

১. General: Settings মেনু থেকে  General সাবমেনু তে গিয়ে সাইটের টাইটেল, পোস্ট দেখানোর সময় সময় তারিখের ফরমেট ইত্যাদি ঠিক করে দেয়া যায়।

ক) Site Title: এখানে আপনি আপনার সাইটের টাইটেল দিবেন। যেটি ব্রাউজারে সাইট লোড হবার সময় ব্রাউজারের টাইটেল বারে প্রদর্শন করবে।

খ) Tagline: এটিও সাইট টাইটেলের সাথেই প্রদর্শন করবে। তবে, সাইট টাইটেলের পরে দেখাবে।

গ) WordPress Address (URL) : এখানে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইট যে ডিরেক্টরীতে ইন্সটল করছেন সেটির URL দিতে হবে।

ঘ) Site Address: এটিও WordPress Address (URL) এর মতই কাজ করবে। তবে আপনি যদি আপনার সাইটের হোমপেজকে আলাদা দেখাতে ইচ্ছুক হন সেই ক্ষেত্রে আলাদা URL ব্যবহার করতে পারেন এখানে।

ঙ) Email Address: আপনার সাইট এডমিন হিসেবে যে মেইল ঠিকনা ব্যবহার করতে ইচ্ছুক সেটি এখানে দিতে হবে। এই ঠিকানায় সাইট সম্পর্কীত যেকোনো মেইল, নতুন ইউজার নিবন্ধন করলে তার ইমেইল চলে যাবে।

চ) Membership: চেকবক্স যদি টিক দেয়া থাকে তাহলে সাইটে ইউজার রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে। সাইটে যদি ইউজার নিবন্ধনের কোন কাজ না থাকে তাহলে এটা আনচেক করে রাখুন।

ছ) New User Default Role: সাইটে নতুন ইউজার নিবন্ধন করলে তার ভুমিকা কি হতে পারে বা আপনি হিসেবে রাখতে ইচ্ছুক সেটা নির্ধারন করে দিতে পারবেন। Administrator = সে আপনার সাইটের সকলডাটা এক্সেস করতে পারবেন, Eidtor = সে আপনার সাইটে তার লিখা সরাসরি প্রকাশ করতে, অন্যের লিখা সম্পাদন করতে, সাইটের সকল মন্তব্য সম্পাদন করতে এবং অবাঞ্চিত মন্তব্য delete করে দিতে পারবে।

জ) Timezone: Timezone থেকে সাইটের সময় কোন টাইমজোনে দেখাবে সেটা ঠিক করে দিতে পারেন। যেমন আমি “UTC+6” দিয়েছি কারন এটা বাংলাদেশের টাইমজোন।

ঝ) Date Format: এখানে থেকে আপনার সাইটের তারিখ এর ফরম্যাট ঠিক করে নিতে পারবেন।

ঞ) Time Format: Time Format থেকেও একইভাবে সময় কিভাবে AM, PM সহ নাকি ২৪ ঘন্টা ফরমেটে দেখাবে ইত্যাদি ঠিক করে দিতে পারেন।

ট) Week Starts On: এখানে থেকে আপনার সাইটের সপ্তাহের দিন শুরু হবে কোন দিন থেকে এর ফরম্যাট ঠিক করে নিতে পারবেন।

সব শেষে Save Changes ক্লিক করুন।

২.Writing: নিচের Writing সেটিংস্‌ এর চিত্রটি দেখুন…

 

Writing সেটিংস্‌ এ বেশি কিছু নির্ধারন করার প্রয়োজন নাই। তবে যে কয়েকটি বিষয় নির্ধারন করতে হয় সেগুলোঃ ক) Formatting: এইখানের দুটি চেক বক্সই চেক করে দিতে হবে। আপনি যখন গ্রাফিকাল ইমোটিকনের কোড আপনার পোস্টে ব্যবহার করবেন এবং পোস্টে বা মন্তব্যের ঘরে কোন HTML/XHTML কোড ব্যবহার করবেন এইগুলর কোন ভুল হলে তা সয়ংক্রিয়ভাবে ঠিক করে নিবে আর ইমোটিকনের গ্রাফিক্যাল লুক দেখতে পারবেন।

খ) Default Post Category: আপনার সাইটের লিখা/পোস্টগুলোর জন্য একাধিক বিভাগ থাকতে পারে। আপনি যখন কোন পোস্ট লিখেন তখন তা সয়ংক্রিয়ভাবে সংরক্ষিত হয় এবং এই Default Post Category তে যেই বিভাগটি নির্বাচন করা থাকে সেই বিভাগের অধীনে সংরক্ষিত হবে। আপনার ইচ্ছামত Category(বিভাগ) নির্ধারন করে Save Changes ক্লিক করুন।

৩. Reading: নিচের Reading সেটিংস্‌ এর চিত্রটি দেখুন…

ক) Front page displays: এই সেটিংসে আপনি দুটি রেডিও বাটন পাবেন। Your latest posts নির্বাচন করা থাকলে আপনি আপনার সাইটে নতুন পোস্ট পাবলিশ করলেই সেগুলো হোম পেজে প্রদর্শন করবে সয়ংক্রিয়ভাবে। A static page (selected below) থেকে কোন পেজ নির্বাচিত থাকলে আপনার সাইটের হোম পেজে সেটাই প্রদর্শন করবে।

খ) Blog posts show at most: এইখানে আপনি যতটা পোস্ট আপনার হোম পেজে দেখাতে চাইবেন তার সংখ্যা লিখে দিবেন। অন্যান্য অপশনগুলোতে হাত না দিলেও চলবে।

এবার সব শেষে Save Changes ক্লিক করুন।

৪. Discussion: নিচের Discussion সেটিংস্‌ এর চিত্রটি দেখুন… এই সেকশনে আপনি মূলত সাইটের মন্তব্য নিয়ে কাজ করতে পারবেন। এই অপশনে আপনি যা যা পাচ্ছেনঃ

ক) Default article settings:

> Attempt to notify any blogs linked to from the article এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের কোন লিখা যদি অন্যকোন ব্লগ/সাইটে লিঙ্ক হয়ে থাকে সেটার নটিফিকেশন পাবেন আপনার ব্লগ এডমিন ইমেইলে। > Allow link notifications from other blogs (pingbacks and trackbacks) এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের কোন লিখা যদি অন্যকোন ব্লগ/সাইটে পিং করে থাকে সেটার নটিফিকেশন পাবেন আপনার ব্লগ এডমিন ইমেইলে। > Allow people to post comments on new articles এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকরা মন্তব্য প্রদান করতে পারবে। যদি আনচেক থাকে তবে মন্তব্য করতে পারবে না।

খ) Other comment settings:

> Comment author must fill out name and e-mail এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকরা মন্তব্য প্রদান করতে চাইলে তার নাম এবং ইমেইল এড্রেস অবশ্যই নির্ধারিত ঘরে দিয়ে মন্তব্য প্রদান করতে হবে। > Users must be registered and logged in to comment এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকরা মন্তব্য প্রদান করতে চাইলে তাকে অবশ্যই আপনার সাইটে নিবন্ধন করতে হবে। > Automatically close comments on articles older than days এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে কেউ লিখা প্রকাশের ১৪ দিন পরে আর মন্তব্য করতে পারবে না। > Break comments into pages with top level comments per page and the page displayed by default Comments should be displayed with the comments at the top of each page এই অপশনে চেক করা থাকলে প্রথম ৫০টি মন্তব্য উক্ত পোস্টের প্রথম পাতায় দেখাবে এবং ৫১ নং থেকে দ্বিতীয় পাতায় চলে যাবে। Comments should be displayed with the comments at the top of each page এই অপশনে older নির্বাচন করা থাকলে নতুন মন্তব্যগুলো পোস্টে সবার শেষে দেখাবে আর যদি newer নির্বাচন করা থাকে তবে নতুন মন্তব্যগুলো পোস্টে সবার আগে এবং পুরাতনগুলো সবার শেষে দেখাবে।

গ) E-mail me whenever:

> Anyone posts a comment এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকরা মন্তব্য করলে সেটা আপনার ইমেইলে চলে যাবে। তবে হ্যাঁ, এডমিন হিসেবে যদি আপনি কোন লিখা পোস্ট করেন তবে আপনার লিখা গুলো যে অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে পাবলিশ করবেন সেই অ্যাকাউন্ট ইমেইল ঠিকানায় মেইল পাবেন। > A comment is held for moderation: এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকরা মন্তব্য করলে সেটা আপনার ইমেলে চলে যাবে কিন্তু সেটা সরাসরি ব্লগে প্রকাশ হবে না। পোস্টের লেখক সেই মন্তব্য প্রকাশের অনুমতি দিলে তবেই শুধু মন্তব্যটি লিখায়/পোস্টে প্রকাশ পাবে।

ঘ) Before a comment appears:

> An administrator must always approve the comment : এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকদের মন্তব্য আপনার থেকে অনুমোদন পাবার পরে প্রকাশ পাবে। > Comment author must have a previously approved comment: এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকের পূরবর্তী কোন ১টি মন্তব্য আপনি এডমিন থেকে অনুমোদন পেয়ে থাকলে পরের মন্তব্যগুলো প্রকাশের জন্য আর অনুমোদনের প্রয়োজন হবে না।

ঙ) Avatar Display:

> Don’t show Avatars: এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকের মন্তব্যের পাশে আপনার কোন ছবি (Avatar) প্রদর্শন করবে না। আভাটর কি কেন এসব সম্পর্কে বিস্তারিত এখানে দেখুন। > Show Avatars: এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার ব্লগের/সাইটের যেকোন লিখাতে পাঠকের মন্তব্যের পাশে আপনার কোন ছবি( Avatar) প্রদর্শন করবে।

চ) Default Avatar: এই আভাটর অপশনে কয়েক ধরনের আভাটর পাবেন। ৯০% এর বেশি ব্লগাররা এর অপশনে Gravatar Logo নির্বাচন করে।

সব শেষে Save Changes ক্লিক করুন।

৫. Media: নিচের Media সেটিংস্‌ এর চিত্রটি দেখুন… এই সেকশনে আপনি মূলত সাইটের ইমেজ, ভিডিও সাইজ এবং ওয়ার্ডপ্রেসের ডিফল্ট ইমেজ আপলোড লোকেশন নিয়ে কাজ করতে পারবেন…

এই অপশনে আপনি যা যা পাচ্ছেনঃ

ক) Image sizes:

> Thumbnail size: আপনি লক্ষ করে থাকবেন। আপনি যখন কোন সাইটে সরাসরি হোম পেজে ব্রাউজ করে প্রবেস করে থাকেন। সেই সাইটের প্রতিটি পোস্টের বাম পাশে পোস্টের সাথে মিল রেখে একটি করে ছোট ইমেজ প্রদর্শন করে। এটিকেই থাম্বনাইল ইমেজ বলে। মিডিয়ার Thumbnail size থেকে এটির জন্য প্রস্থ এবং উচ্চতা নির্ধারন করে দিতে হয়। বাই ডিফল্ট সাইজ থাকে ১৫০x১৫০ পিক্সেল। আপনি চাইলে বাড়াতে কিংবা কমাতে পারেন।

খ) Embeds: এখানে থেকে আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের পোস্টে এবং পেজে যে ভিডিও গুলো ইনসার্ট করবেন সেগুলোর স্বয়ংক্রিয় সাইজ নির্ধারন করে নিতে পারবেন।

গ) Uploading Files: এখানে থেকে আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের পোস্টে এবং পেজে যে ইমেইজ/ছবি গুলো ইনসার্ট করবেন সেগুলোর আপলোড লোকেশন নির্ধারন করে নিতে পারবেন। সাধারনভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের রুট ডিরেক্টরিতে yoursite.extension/wp-content/uploads এই ফোল্ডারে ইমেইজ/ছবি আপলোড হয়ে থাকে। আপনি চাইলে চিত্রে দেখানো Store uploads in this folder এর পাশের ফাঁকা ঘরে আপনার কাঙ্খিত নামের এবং জায়গায় আপলোড ডিরেক্টরী তৈরী করে নিতে পারেন।

ঘ) Organize my uploads into month- and year-based folders এই অপশনে চেক করা থাকলে আপনার সাইটে যত ইমাগে/ছবি আপলোড হবে সব মাস এবং বছর অনুযায়ী সাজানো থাকবে।

সব শেষে Save Changes ক্লিক করুন।

৬. Privacy: নিচের Privacy সেটিংস্‌ এর চিত্রটি দেখুন… এই সেকশনে আপনি মূলত সাইটকে সার্চ ইঞ্জিন ইনডেক্স করা এবং না করা থেকে বিরত রাখতে পারবেন।

 

এই অপশনে আপনি যা যা পাচ্ছেনঃ

ক) Site Visibility:

> Allow search engines to index this site এই রেডিও বক্সটি নির্বাচন করা থাকলে আপনার ব্লগ/সাইটকে যেকোন লিখাকে বা সম্পুর্ন সাইটকে সার্চ ইঞ্জিন ইনডেক্স করতে পারবে। > Ask search engines not to index this site এই রেডিও বক্সটি নির্বাচন করা থাকলে আপনার ব্লগ/সাইটকে যেকোন লিখাকে বা সম্পুর্ন সাইটকে সার্চ ইঞ্জিন ইনডেক্স করতে পারবে পারবে না। তবে এমনটা না যে আপনার সাইট সার্চ ইঞ্জিনে ব্লক থাকবে। সাধরন ভিজিটররা সরাসরি আপনার সাইটকে ব্রাউজ করে দেখতে পারবেন।

সব শেষে Save Changes ক্লিক করুন।

৭. Permalinks: নিচের Permalinks সেটিংস্‌ এর চিত্রটি দেখুন… এই সেকশনে আপনি মূলত সাইটের পোস্টের কাস্টম ইউআরএল/ ঠিকানার গঠন তৈরী করে নিতে পারবেন।

 

এই অপশনে আপনি যা যা পাচ্ছেনঃ

ক) Custom Settings:

> Default, Day and name, Date and month, Numeric, Post name এই পোস্ট স্ট্রাকচার গুলোর পাশের লিঙ্ক গুলো খেয়াল করুন। লিঙ্ক স্ট্রাকচার অনেক গুরুপ্তপূর্ণ একটি ব্যাপার। এটি আপনার সাইটকে সার্চ ইঞ্জিনে এগিয়ে যেতে সহায়তা করবে। আপনার ইচ্ছানুযায়ী উপরের যেকোনো লিঙ্ক স্ট্রাকচার নির্ধারন করতে পারবেন। তবে Custom Structure নির্ধারন করতে চাইলে আপনাকে এই ব্যাপারটি ভাল করে জানতে হবে। তাই, যদি বিস্তারিত জানার আগ্রহ থাকে তবে ওয়ার্ডপ্রেস.অর্গ এর ক্যাস্টম স্ট্রাকচার এর পেজটি দেখতে পারেন।

খ) Optional: লিঙ্ক স্ট্রাকচারের মতো আপনি চাইলে ওয়ার্ডপ্রেসের ক্যাটাগরি এবং ট্যাগের নামের ভিন্নতা আনতে পারেন। যেমনঃ বাই ডিফল্ট ক্যাটাগরি এর নামে থাকে category এবং ট্যাগ এর নাম তাকে tag। আপনি চাইলে Optional এর Category base এ section বা subject এবং Tag base এ topic বা আপনার পছন্দ মতো লিখা দিতে পারেন। পেজটি সেভ করার পর সাইটের ব্রাউজ করে দেখুন সাইটের বাই ডিফল্ট Category এবং Tag নাম টি পরিবর্তন হয়ে আপনার দেয়া নাম প্রদর্শন করবে।

ওয়ার্ডপ্রেস সেটিংস নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা এই পর্যন্ত!

সবাই ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন! 🙂