ইন্টেরিয়রের নানা জানা অজানা - প্রিয়লেখা

ইন্টেরিয়রের নানা জানা অজানা

CIT-Inst
Published: June 14, 2017

 

আচ্ছা কখনো কি স্বপ্ন দেখেছেন সাজানো গোছানো নিজের এক চিলতে আবাসের? অথবা আপনার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের অন্দরমহল ও বাহিরের সাজ সজ্জা? আপনি যখন কোন প্রতিষ্ঠানের বা আবাসের ডিজাইন করতে চাচ্ছেন, প্রাথমিক ভাবে যাচ্ছেন একজন আর্কিটেক্ট বা স্থপতির কাছে। তিনি ইয়া বড় এক ট্রেসিং পেপারে আঁকি বুকি কেটে আপনায় দেখিয়ে দিচ্ছে সব কিছু। আপনিও ঘাড় নেড়ে সায় দিয়ে চলে আসলেন। তারপর মিস্ত্রি কে দিয়ে সব ঠিকঠাক করানোর পর আপনার মনে হচ্ছে না আমি তো ঠিক এভাবে চাই নি। তারপর শুরু হচ্ছে আবার ভাঙা গড়ার খেলা। এই যে আনুমানিক ডিজাইন ও তার সাথে আপনার ধারনার মাঝে যে শূন্যতা  তার ফলাফল ডেকে আনে বাড়তি খরচ। এতক্ষন যে বিষয়  নিয়ে কথা বলেছি তা হচ্ছে পূর্বের অবস্থা।বর্তমান প্রেক্ষাপট কিন্তু সম্পূর্ণ ভিন্ন। আর সেই অবদান সম্পূর্ণ রূপে ইন্টেরিয়র ডিজাইনারদের।

মানুষ মাত্রই রুচিশীল। সৌন্দর্যের প্রতি তার যেন চিরন্তন মোহ। সুন্দর নারীকে দেখে যেমন পুরুষের দৃষ্টি সরে না। তেমনি একটি  সুন্দর আবাস স্থল ও যেন আপনার আভিজাত্য কে ফুটিয়ে তোলে। তবু একটি আবাস স্থল কে দৃষ্টি নন্দন করে ফুটিয়ে তোলা মোটেই সহজ কাজ নয়। তার জন্য যেমন কিছু আবশ্যকীয় জিনিসের প্রতি ধারনা থাকা প্রয়োজন তেমনি প্রয়োজন পরে  ইউনিক ডিজাইন আইডিয়া।

 

আচ্ছা বলছি যখন ইন্টেরিয়র ডিজাইনারদের কথা একটু নিশ্চয়ই জানা উচিত ইন্টেরিয়র ডিজাইন টা কি? চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক-

ইন্টেরিয়র ডিজাইন হচ্ছে শিল্প বোধ, জ্ঞান ও প্রযুক্তির সম্মিলিত ব্যবহার। যদি ইন্টেরিয়র কি জিজ্ঞেস করা হয়, তবে সহজেই প্রথম যে উত্তরটি পাওয়া যায় তা হচ্ছে একটি গৃহের অন্দর সজ্জা। কেউ কেউ তো গৃহ সজ্জার উপকরণকেও ইন্টেরিয়র বলে বসেন। তবে এগুলো সবই সত্য শোনালেও তাকে আমি বলবো আংশিক সত্য। কারন  ইন্টেরিয়র ডিজাইন বলতে বুঝায় আর্ট ও সাইন্সের সমন্নয়ে গড়ে উঠা এমন একটি  বিষয়  যা একটি বাসস্থান বা ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের নিম্নলিখিত জিনিসগুলোর পাশাপাশি ক্লায়েন্ট রিলেশন প্রোজেক্ট কমপ্লিসনের প্রতি বিশেষ দৃষ্টি  দিয়ে

থাকে।যার মধ্যে রয়েছেঃ-

  • ইন্টেরিয়র-এক্সটেরিয়র
  • স্পেস ম্যানেজমেন্ট
  • স্বাস্থ্যকর পরিবেশ
  • মাস ভয়েড রিলেশনশিপ
  • ফার্নিচার ডিজাইন
  • ফিক্সড ফার্নিচার ডিজাইন
  • রিয়েলিস্টিক রেন্ডার
  • রিয়েলিস্টিক অ্যানিমেশন ইত্যাদি।

তবে প্রতিটি বিষয়ের প্রতি সবার লক্ষ্য একটাই। আর তা হচ্ছে সৌন্দর্যের বহিঃপ্রকাশ। আপনারা খেয়াল করেছেন কিনা জানি না। যদিও কথা বলছিলাম আমরা ইন্টেরিয়র ডিজাইন নিয়ে কিন্তু আমি এক্সটেরিয়র  ডিজাইনকেও ইন্টেরিয়র ডিজাইনার এর অন্তর্ভুক্ত বলেছিলাম। খানিকটা অবাক হলেও এই কথাটি কিন্তু সত্যি। কথাটি হচ্ছে “এক্সটেরিয়র ইন্টেরিয়র হয় তবে ইন্টেরিয়র কিন্তু এক্সটেরিয়র নয়।” কি খানিক টা কনফিউসিং লাগছে? একটি উদাহরণ দিচ্ছিঃ- ধরুন ফ্ল্যাট এর একচিলতে বারান্দায় রাখতে চাচ্ছেন ফুলের গাছ, তার জন্য কার্নিশ কে খানিক বাড়িয়ে দিলেন এটি কিন্তু এক্সটেরিয়র তবু কাজ করছে ইন্টেরিয়র হিসেবে।

 

আসছে ঈদে আপনার ঘরকে সাজিয়ে তুলতে পারেন নিজের মনের মত। দেয়াল জুড়ে থাকবে হালকা কিছু পেইন্টিং। ড্রইং রুমে থাকবে একটি ছোট্ট ফ্লাওয়ার বোল, কালার আপনার পছন্দ মত। সেখানে ভাসাতে পারেন জল পদ্ম। হালকা ছোট বড় মোমবাতি দিয়েও সাজাতে পারেন ঘরটি। এক কোনায় রাখতে পারেন পাতা বাহারের টব। আরও কিভাবে সাজাতে পারেন? বুক সেলফের বই ও  কিন্তু সৌন্দর্য ও রুচিশীলতার পরিচায়ক। আমাদের পরবর্তী পর্বে আমরা সে বিষয়ে কথা বলবো।

সৌন্দর্য ও গৃহ সজ্জা এর পাশাপাশি কোথায় আপনি শিখতে  পারেন ইন্টেরিয়র ডিজাইন। পেশা হিসেবে কেমন হতে পারে এর আয় এসব জানতে প্রিয়লেখার সাথেই থাকুন।