অ্যাডোব ফটোশপে সৃষ্টি করুন ছবির ধাঁধা - প্রিয়লেখা

অ্যাডোব ফটোশপে সৃষ্টি করুন ছবির ধাঁধা

Ishtiaque Nur
Published: May 8, 2017

আপনি ভালোবাসেন ছবির মাঝে গ্রাফিক্যাল রিপ্রেজেন্টেসন, ভালোবাসেন অ্যাডোবি ফটোশপের কাজে চমকে দিতে সবাইকে। তাহলে এই কাজটি ঠিক যেন আপনার জন্যই পারফেক্ট। সৃষ্টি করুন অ্যাডোবি ফটোশপের এক অসাধারন ছবির ধাধা,চমকে দিন নিজের সৃষ্টিশীল প্রতিভায় সবাইকে। কেমন করে??? চলুন দেখে নিই-

আপনার ফটোশপ দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে বানিয়ে ফেলুন আজই এক দারুন প্রোজেক্ট। সৃষ্টি করুন দৃষ্টি নন্দন অপ্টিক্যাল ইলিউসন।অপ্টিক্যাল ইলিউসন এমন একটি ধাঁধা যা আপনার ভিউয়ারদের মাঝে অদ্ভুত এক অভিজ্ঞতার জন্ম দিবে। তার যা দেখছে বলে ভাবছে ছবিতে তার ভিন্ন কিছু প্রকাশ পাবে ঠিক যেন সেই গান টির মত-”যা দেখছো’ তা তা না,সব দেখা জানা না-”

আমাদের আজকের লিখা এমন একটি টিউটোরিয়াল নিয়ে যা আপনাকে কম্পোজিশন করা শেখাবে না শেষ হওয়া ছবির গোলোক ধাঁধা নিয়ে। আপনি তৈরি করবেন ছবির ভিতর ছবি তার ভিতর ছবি এতে আপনি ফটো ম্যানিপুলেশন টেকনিক ব্যবহার করতে পারেন।চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে করবেনঃ-

টিউটোরিয়াল এর আগে যে জিনিসগুলো আপানার প্রয়োজন হবে-

ছবির ধাঁধা সৃষ্টিতে ডকুমেন্ট গুলো ঠিক কিভাবে সাজাবেনঃ

১ম পদক্ষেপঃ

প্রথমেই যে কাজটি করতে হবে তা হলো পারফেক্ট ম্যানিপুলেসন সৃষ্টির জন্য ঠিক মনের মত একটি ইমেজ/ছবি সিলেক্ট করা। আমি মনে মনে যেহেতু লালচুল ভীষণ ভালোবাসি তাই এই লালচুলের মডেল কে বেজ করে কম্পোজিশন এর কাজ করবো। আপনি চাইলেই আপনার পছন্দমত ছবি ব্যবহার করতে পারেন।

উপরে দেওয়া ছবিটিকে বেজ ধরে আমরা আমাদের দৃশ্য ধারন করবো। তবে কাজ শুরু করার আগে কিছু জিনিস ঠিক করে নেওয়া প্রয়োজন। যা নিচে তুলে ধরা হলোঃ-

  • জেনারেল বডি পোজিশনঃ

এই ছবিটি পছন্দের কিছু কারন যার প্রধান কারন হিসেবে আমি বলবো ক্যামেরা ফোকাসড স্ট্রং ফটোজেনিক লুক। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত মডেলটি কোনাকুনি দাঁড়িয়েছে ও তার হাত নিচের দিকে করা। তাই আমাদের কাজটি শুরু করার পূর্বে কৌশলে ছবিটি নিজেদের প্রয়োজন মত এডিট করে নিতে হবে।

১.হাতের পোজিশনঃ

আমরা চাচ্ছি আমাদের মডেল হাতে ধরে রাখবে ফটো ফ্রেম। যদি এমন ছবি খুজে পান তাহলে তো  খুবই ভালো। তবে যদি এমন হয় যে আপনি আসা অনুযায়ী ছবি পাচ্ছেন না তবে আপনাকে স্ক্র্যাচ থেকে ছবি কৌশলে সাজিয়ে নিতে হবে।এটা করতে আমাদের ভালো সুবিধাজনক অবস্থানে রাখা এমন হাতের ছবি সংগ্রহ করতে হবে যা পরবর্তীতে স্টিমুলেসন করা সহজ হবে ।

২ .ব্যাকগ্রাউন্ডঃ  

শেষে আমাদের লাগবে একটি আকর্ষণীয় ব্যাকগ্রাউন্ড। দেখা যাচ্ছে আমাদের সিলেক্টেড ছবিটি দাঁড়ানো পজিসনে রয়েছে । এ ছবিটাকে ব্যবহার করে ইলিউসন বা গোলক ধাঁধা সৃষ্টি করতে হলে ছবিটাকে মাঝে নিয়ে যেতে হবে। আর তাকে আরও গ্রহণযোগ্য করে তুলতে ছবির মাঝে ফিল্ডে গভীরতা সৃষ্টি করতে হবে।কিভাবে আমরা কাজটি করবো তা বুঝতে পূর্বের ও পরের ছবিটি একবার দেখে নিন তাহলে কাজের সিঙ্ক্রোনাইজেসন মাথায় রাখতে পারবেন-

২য় পদক্ষেপঃ

এখন আমাদের কাজের ডকুমেন্ট গুছানো শেষ। তাই শুরু করতে যাচ্ছি আমাদের কাজের পরবর্তী ধাপ। এবার রেডহেড মডেলের  ছবি ফটোশপে ওপেন করুন। ব্যাকগ্রাউন্ড লেয়ারে ডাবল ক্লিক করুন ০ লেয়ারে পৌঁছাতে।এবার ক্রপ টুল ব্যবহার করুন (C), ইমেজ / ছবির জায়গা কে ডান দিকে স্ক্রল করে একটু বাড়িয়ে নিন। ছবির সামঞ্জস্যতা বা ব্যালেন্স বজায় রাখতে ডানদিকের বেশ খানিকটা ফাকা জায়গা আমাদের প্রয়োজন পড়বে। এরপর ছবির একদম উপরের অংশটাকে স্ক্রল করে খানিকটা বড় করতে হবে ব্যাকগ্রাউন্ড সেটের প্রয়োজনে। আমাদের কাজ যখন প্রায় শেষ হয়ে যাবে তখন আমরা ছবির ডাইমেনশনে পরিবর্তন দেখতে পাবো যা ১৯২০ x ১২৮০ পিক্সেল হতে পরিবর্তিত হয়ে ২২২৬ x ১৪১২ পিক্সেল হবে

৩য় পদক্ষেপঃ

এখন সময় ফাকা জায়গাগুলোকে ভরাট করার। অরিজিনাল ছবির নিচে একটি নতুন লেয়ার তৈরি করুন ও তা কালো রঙ দিয়ে ভরাট করুন।এই কাজে ব্যবহার করুন পেইন্ট বাকেট টুল (G). তারপর ছবিটি সিলেক্ট করুন, চাপুন Ctrl-J দুইবার, এতে যে ডুপ্লিকেট সৃষ্টি হবে তার একটিকে ডান দিকে নিয়ে নাম দিন ‘ডানপাশ’ । এবার ছবির অন্য কপিটির ভিজিবিলিটি কে হাইড করে রেখে দিন পরবর্তী ধাপের জন্য।

আবার ডানদিকের লেয়ারটি সিলেক্ট করুন। তারপর উল্লেখিত পন্থা অনুসরন করুন  Edit > Transform > Flip Horizontal । নিশ্চিত করবেন যেন লেয়ার প্যানেলের ফটোটি আপনার অরিজিনাল ফটোর নিচে হয়। তারপর নিচের ফটোর লেয়ারটি ডানদিকে খানিকটা সরিয়ে নিয়ে যাবেন যেন ফাঁকা জায়গাটি পুরন হয়ে যায়।

আপনি ব্যকগ্রাউন্ড ইমেজকে কিভাবে ব্লেন্ড বা একীভূত করবেনঃ

১ম পদক্ষেপঃ

কপি ও পেস্ট করুন এবার সবুজে ছাওয়া ল্যান্ডস্কেপ টি একটি নতুন লেয়ারে আপনার ব্ল্যাক ব্যাকগ্রাউন্ডের উপরে। ব্যাকগ্রাউন্ডটি সঠিকভাবে রিসাইজ করতে ফ্রী ট্রান্সফর্ম টুল ব্যবহার করুন। চাপ দিন Ctrl-T. খেয়াল রাখুন পজিশন যেন পারফেক্ট হয়, অর্থাৎ অরিজিনাল ছবির গাছে উপরিভাগ যেন সবুজে ছাওয়া ল্যান্ডস্কেপ এর সাথে ম্যাচ করে।

২য় পদক্ষেপঃ

চলুন এবার অরিজিনাল ছবির সাথে ম্যাচ করে কালার অ্যাডজাস্ট করে নিই। চলে যান Image > Adjastment > Hue > Saturarion এ। সেটিংস নিচের পন্থায় অ্যাডজাস্ট করে নিনঃ-

  • Hue : -3
  • Saturation : -64
  • Lightness : -15

আমাদের কালার ব্লেন্ডিং এর জন্য আরও পারফেক্ট অ্যাডজাস্টমেন্ট এর প্রয়োজন হবে। একটি নতুন অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার তৈরি করতে হবে ও তার সাথে কালার ব্যালেন্স, শ্যাডো ও মিডটোন  সেটিংস নিচের মত মিলিয়ে দিতে হবে-

তারপর একটি নতুন কার্ভ এর অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার তৈরি করতে হবে যা কালার ব্যালেন্স ও লাইটিংটাকে ফুটিয়ে তুলবে। তারপর নিচের মত আরজিবি চ্যানেল কার্ভ টি সেট করুনঃ-

৩য় পদক্ষেপঃ

সবুজে ছাওয়া ল্যান্ডস্কেপ  টিকে আরেকটু গভীরতা দিতে ফিল্ড এর ব্যাকগ্রাউন্ডটি খানিকটা ব্লার করে দিতে হবে। সবুজে ছাওয়া ল্যান্ডস্কেপ টির লেয়ার সিলেক্ট করুন। তারপর Filter > Blur > Gaussian Blur এই ধাপটি

অনুসরন করুন। রেডিয়াস ৭.৭ সিলেক্ট করে নিতে আগে ভুলবেন না।

৪র্থ পদক্ষেপঃ

এখন যেহেতু আমরা আমাদের সমস্ত ব্যাকগ্রাউন্ড এলেমেন্টস পেয়ে গেছি একন দরকার সঠিক মিশ্রণ যাতে সবগুলোকে মনে হয় একটি ছবি নাকি আলাদা আলাদা অংশবিশেষ। এটি করার জন্য আমাদের প্রয়োজন পড়বে একটি লেয়ার মাস্ক যা অরিজিনাল ও ডুপ্লিকেট উভয় ছবির নিচেই প্রয়োজন পড়বে।

ব্রাশ টুল (B) ব্যবহার করুন হার্ডনেস রাখুন ০% প্রত্যেক লেয়ার মাস্কে যতটুকুই গ্যাপ দেখুন না কেন তা ভরিয়ে তুলুন কালো রঙে। হাল্কা কালো রঙের ব্যবহার ছবির মিশ্রণকে বিশেষিত করবে এবং তা অরিজিনাল ছবিকে নস্ট না করেই।খেয়াল করে দেখবেন ডানদিকের ছবির লেয়ারটি সবুজে ছাওয়া ল্যান্ডস্কেপ টিকে ঢেকে রেখেছে। তাই নিশ্চিত করুন লেয়ার মাস্কের কালার কমপ্লিসন যেন অরিজিনাল ছবির ব্লেন্ডিং সুন্দর হয়।

ফাইনাল ব্যাকগ্রাউন্ডটি যেমন দেখাবেঃ-

কিভাবে মডেলের বডি পজিশন পরিবর্তন করবেনঃ

১ম পদক্ষেপঃ

ব্যাকগ্রাউন্ড সম্পূর্ণ সেট হলে এবার আমরা মডেলের দিকে দৃষ্টি ফেরাতে পারি। মনে আছে কিছু লেয়ার আমরা হিডেন রেখেছিলাম ? সেই লেয়ারগুলো এবার আনহাইড করে ছবির সেকেন্ড কপিগুলো ওপেন করুন। এবার ম্যাগ্নেটিক লেসো টুল (M) ব্যবহার করুন মডেলটির আশেপাশে সিলেক্ট করতে। তারপর লেয়ার মাস্ক সিলেক্ট করুন মাউসের ডান বাটনে ক্লিক করে ইনভারস সিলেক্সন সিলেক্ট করুন ও ডিলিট বাটনে চাপ দিন। পরবর্তীতে  আপনার লেয়ার মাস্কগুলোর ব্যকগ্রাউন্ড হাইড করতে কালো রঙ ব্যবহার করুন।

২য় পদক্ষেপঃ

মডেল যেন সামনের দিকে তাকিয়ে আছে এমন ধারনা তৈরি করতে হলে খেয়াল রাখতে হবে মডেলের কাধ দুটো যেন সামনের দিকে দৃশ্যমান হয়। মডেল লেয়ারটি সিলেক্ট করুন ও তারপর Edit > Transform > Flip Horizontal, এই ভাবে মডেলের পজিশন অ্যাডজাস্ট করে নিন।

এখন ব্রাশ (B) টুল ব্যবহার করে কালো রঙে লেয়ার মাস্কের অর্ধেকটা ঢেকে দিই যেন মডেলের অর্ধেকটা বডি ঢেকে যায়।আপনি শুধুমাত্র দুইটি অংশ দেখাবেন, মডেলের ডান কাধ ও পরিধেয় সুয়্যেটার এর নিচের অংশ।এর জন্য খানিকটা ক্রিয়েটিভ ম্যানুয়েভারিং এর প্রয়োজন পড়বে,মনে রাখবেন মডেলের মাঝের অংশ ফটোফ্রেমে ঢাকা পড়বে।

ছবিতে আপনারা দেখতে পারছেন কিভাবে ধাপে ধাপে অরিজিনাল মডেলের ছবিকে বডি রিপোজিশনে নেওয়া হয়েছে।দেখতে পাবেন শুধুমাত্র ঘাড়টিকে একটু সামনে এনে মিরর ইমেজের মাধ্যমে সহজেই বডিকে রিপোজিশন করা সহজ।

৩য় পদক্ষেপঃ

বডি পোজিশন সেট হয়ে যাবার পর এখন সময় ছবির ফ্রেম কম্পোজিশনে নিয়ে আসার। ফটোফ্রেমটি এমনিতেই এখানে একটি আইসোলেটেড অবজেক্ট তাই এটাকে আমাদের বাইরে থেকে এক্সট্রাক্ট করতে হবে। ফটোফ্রেমটি কম্পোজিশনে কপি-পেস্ট করি। রিসাইজ ও রোটেট করার জন্য আমরা ফ্রি ট্রান্সফরম টুল (Control-T) ব্যবহার করতে পারি কারন পুরো দৃশ্যটি ল্যান্ডস্কেপে সাজানো। Rectangular Marquee Tool (M) ব্যবহার করে ফটোফ্রেমের মাঝের অংশটি সিলেক্ট করে পেইন্ট বাকেট টুল(G) ব্যবহার করে সিলেক্টেড অংশটিকে কালো রঙে ভরিয়ে তুলি।

 


ফ্রেমের কালারটি অ্যাডজাস্ট করে নিন। Hue and Saturation এর জন্য নতুন একটি অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার সৃষ্টি করুন ফ্রেমে ক্লিপিং মাস্ক এর জন্য । নিচের মত সেটিংসগুলো অ্যাডজাস্ট করে নেনঃ-

  • Hue: +42
  • Saturation: -72
  • Lightness: -53

৪র্থ পদক্ষেপঃ

নতুন একটি লেয়ার সেট করি ও ফ্রেম লেয়ার এর উপর লিনিয়ার ডজ যোগ করি। ব্রাশ টুল(B) ব্যবহার করে ফ্রেম এর উপর অলিভ কালার ব্যবহার করি, কালার কোডঃ #68573d. ব্লেন্ড মোডের কারনে ফ্রেমে খুব সুন্দর সোনালী হাইলাইটের সৃষ্টি হয় তাই নিশ্চিত হয়ে নিন খুব জমকালো পরিস্কার কিছু ফুটিয়ে তোলার। দৃশ্যকে হাইলাইট করার জন্য একই লেয়ারে আরও কিছু পাতা ব্যবহার করতে পারেন,লাইটিং এ আনতে পারেন ব্যালেন্স।

 

৫ম পদক্ষেপঃ

আমরা কম্পোজিশনে চাচ্ছি ফটোফ্রেমটি ধরে রাখবে দু’টি হাত। এর জন্য প্রথমে আমাদের Advertising Model Stock থেকে একটি হাত এক্সট্রাক্ট করে নিতে হবে। এজন্য আপনারা ল্যাসো টুল (L) ব্যবহার করতে পারেন ও এক্সট্রাক্ট করা হাতের ছবিটি ফ্রেমের উপর একটি নতুন লেয়ারে পেস্ট করুন। তারপর হাতের ছবিটিটিকে রোটেট করার পাশাপাশি রিসাইজ করুন ফ্রী রিসাইজ টুল (Control-T) ব্যবহার করে। হাতের উপর এখন একটি লেয়ার মাস্ক যুক্ত করুন। এখন লেয়ার মাস্কটির উপর কালো রঙ দিয়ে হাতের সেটুকু অংশ ঢেকে দিন যেটউকু আপনি দেখাতে চাচ্ছেন না।

প্রথম অবস্থায় হাতটিকে খুবই ব্রাইট দেখাবে। এখন একটি নতুন অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার ও  Hue and Saturation যুক্ত করতে হবে ক্লিপিং মাস্ক হিসেবে হাত এর লেয়ার এর উপরে। সেটিং টি যেভাবে করতে হবেঃ-

  • Hue : 0
  • Saturation : -36
  • Lightness : -12

প্রথম হাতটি নিয়ে কাজ শেষ করার পর তার ডুপ্লিকেট করে নিন যা আমরা দ্বিতীয় হাত হিসেবে ব্যবহার করবো।দ্বিতীয় হাতটির লেয়ার সিলেক্ট করে আমরা উল্লেখিত পন্থা অনুসরন করবো, Edit > Transform > Flip Hrizontal।ছবিটিকে একেবারে পারফেক্ট লুক দিতে যাবেন না আবার তাহলে তা গ্ল্যামার হারাবে। বাম হাতটিকে খানিকটা নীচু করে দেখান যেন মডেলটি সামনের দিকে ঝুকে আছে শরীরের ভার নিয়ে এমন একটা লুক কাজ করে।

কিভাবে ছবির ভিতর ছবির ধাঁধা সৃষ্টি করবেনঃ

১ম পদক্ষেপঃ

এবার আসুন ছবির ধাঁধায়। এই কাজটি করা আসলে তেমন কঠিন কিছু নয়, তবে চলুন আগে ছবিতে একটি ফিল্টার ব্যবহার করি। নিচের সেটিংস দেখে একটি নতুন অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার এর কালার লুক আপ সেট করি।

  • 3DLUT File : Fuji F 125 Kodak 2395

২য় পদক্ষেপঃ

জুম টুল (Z) সিলেক্ট করুন এবং তারপর Fit Screen অপশনটি সিলেক্ট করুন তাতে পুরো ছবিটি উইন্ডো তে পারফেক্ট ভাবে সেট হয়ে যাবে। এবার Print Screen কী তে চাপ দিয়ে একটি স্ক্রীন শট নিয়ে রাখি। এবার ক্যাপচারড স্ক্রীন শটটি একটি নতুন ডকুমেন্টে ওপেন/পেস্ট করি। Rectangular Marquee Tool (M) ব্যবহার করে যে অংশে ছবির ধাঁধা সৃষ্টি করবো সে অংশটি কাট করে নতুন একটি লেয়ারে পেস্ট করি অরিজিনাল ডকুমেন্টে।

৩য় পদক্ষেপঃ

Free Transform Tool (Contro-T) ব্যবহার করে ছবিটিকে রিসাইজ করে নিই এবং তা এমন ভাবে অ্যালাইন করি যেন তা ফ্রেমের মাঝামাঝি অবস্থান করে। যদি ছবির কোন অংশ বাড়তি মনে হওয় যা ফ্রেমের বাইরে চলে যাচ্ছে তাহলে  Rectangular Marquee Tool (M)  ব্যবহার করে সেই অংশটুকু সিলেক্ট করে Delete বাটন চেপে তা মুছে দিন।

ছবির পোজিশন কে আরও ভালো করতে লেয়ার এর Opacity সাময়িক ভাবে কমিয়ে দিন যেন বাড়তি অংশ ক্লিপিং করতে সুবিধা হয়। এখন আপনার কাছে পিকচার ইফেক্ট সহ যেহেতু ছবি প্রস্তুত রয়েছে তাহলে একই ভাবে আরও ছবি বানিয়ে ছবিকে না শেষ হবার মত অবস্থান সৃষ্টি করুন।এজন্য আপনি ডুপ্লিকেট করতে প্রেস করুন (Ctrl-J)। বেশ কয়েকবার প্রেস করে আপনি স্ক্রীন ক্যাপচার লেয়ার এর বেশ কিছু কপি পাবেন।প্রতিটিকে রিসাইজ করুন এবং ফ্রেমের ভিতর স্থাপন করুন।

চিত্রে ৪টি টোটাল লেয়ার সৃষ্টি করা হয়েছে না শেষ হওয়া ইফেক্ট দেখতে।এই ইফেক্ট সৃষ্টি করতে গিয়ে যদি কোন ফ্রেমে আপনি ছোট কালো বক্স এর মত কিছু দেখতে পান, তবে সেটি কুইক সিলেক্ট করতে  Rectangular Marquee Tool (M) ব্যবহার করে কালো অংশটুকু মুছে ফেলুন এবং সহজে সমস্যার সমাধান করে নিন।

কিভাবে আপনি ছবির ভিতর ছবির ধাঁধা সৃষ্টির সমাপ্তি এডিটিং করবেনঃ

১ম পদক্ষেপঃ

আপনি প্রায় সব কাজই করে ফেলেছেন তাই না? আর অল্প কিছু কাজ বাকি। প্রথমে আমরা কালার কারেকশন এর কাজ টা সেরে ফেলি। নতুন একটি অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার এর লেভেল এর ঠিক নিচের মত সেট করে নিইঃ-

             অতঃপর কালার ব্যলেন্স এর জন্য একটি নতুন অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার কে নিচের সেটিংস এর মত সাজিয়ে নিইঃ-

এই দুইটি অ্যাডজাস্টমেন্ট সেট করার পরে ফাইনাল কম্পোজিশন টা ঠিক নিচের মত দেখাবেঃ-

২য় পদক্ষেপঃ

ছবির লুক কে আরও তীক্ষ্ণ করতে ডিটেইলিং এর দিকে এবার আমরা নজর দিবো। প্রথমে একটি নতুন Group তৈরি করে তার ভিতর সবগুলো লেয়ার সংরক্ষন করুন। Group টি ডুপ্লিকেট করুন ও সবগুলো লেয়ারকে একসাথে ২য় Group এর সাথে merge করুন।Merged লেয়ার সিলেক্ট করুন, তারপর Control-J চাপ দিয়ে কপি করুন। Layer Blend Mode সেট করুন,কপি করুন overlay তে। অতঃপর উল্লেখিত পন্থা অনুসরন করুন, Filter > Other > High Pass. তারপর রেডিয়াস ১০ পিক্সেল এ সেট করুন ও ওকে তে চাপ দিন। এরপর Opacity কে 29% লো করে দিন।

ব্যাস হয়ে গেলো আপনার প্রোজেক্ট কমপ্লিট ঠিক এইভাবেঃ-

তাহলে আজ এই পর্যন্তই খুব দ্রুত আসবো আবার আপনাদের জন্য নতুন কিছু নিয়ে ততদিন প্রিয় লেখার সাথেই থাকুন।